About Water Purifier

পানি বিশুদ্ধকরণ RO ফিল্টার সম্পর্কে

আপনি কি কখনো আপনার খাওয়ার পানিটুকু পরীক্ষা করে দেখেছেন কিংবা কখনো ভেবে দেখেছেন আপনার শরীরের জন্য তা কতটুকু নিরাপদ! আমরা মনে করি পানির বিশুদ্ধতার সাথে কখনো আপোস করা ঠিক নয় । কেননা এর সঙ্গে আপনার নিজের ও পরিবারের সবার স্বাস্ত্যের ব্যাপার জড়িত পানির অপর নাম জীবন, তবে তা হতে হবে বিশুদ্ধ পানি।উলেখ্য, আমাদের দেশের মানুষের মধ্যে সৃষ্ট রোগবালাই এর অধিকাংশ পানিবাহিত রোগ । কী ভাবছেন? পানি ফুটিয়ে পান করবেন? চলুন জেনে নেয়া যাক ফুটানো পানি আপনার জন্য কতখানি নিরাপদ!!!

“ফুটানো পানি শরীরের জন্য শতভাগ নিরাপদ” এই কথাটির বৈজ্ঞানিকভাবে কোনো গ্রহণযোগ্যতা নেই । কেননা পানিকে ফুটিয়ে শতভাগ জীবাণুমুক্ত করা সম্ভব নয় । তাছাড়া ফুটানো পানিতে ভারী মিনারেল থেকে যায়, যা মানুষের দেহের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকারক! পানি ফুটানোর ফলে দ্রবীভূত অক্সিজেন পানি থেকে বেরিয়ে যায়, যা আমাদের শরীরের জন্য খুবই প্রয়োজনীয় ।

এই সমস্যার সমাধান কি??

এই সমস্যার সমাধান হলো Reverse Osmosis টেকনোলজি এবং UV(Ultra Violet) টেকনোলজির মাধ্যমে পানি বিশুদ্ধকরণ | তাই আপনার খাওয়ার পানির ফিল্টারটি Reverse Osmosis টেকনোলজির কিনা জেনে নিন ।

📌রিভার্স অসমোসিস কি এবং এটি কিভাবে পানিকে বিশুদ্ধ করেঃ

👉🏻 রিভার্স অসমোসিস ওয়াটার পিউরিফাইয়ার উন্নত বিশ্বে ব্যাপক পরিচিত একধরনের পানি বিশুদ্ধকরণ প্রক্রিয়া। পানি ফুটানোরপরেও তাতে অনেক ক্ষতিকর পদার্থ থেকে যায় যা আমদের মানব দেহের জন্য অস্বাস্থ্যকর। তবে রিভার্স অসমোসিস সিস্টেমে কোন প্রকার তাপ উৎপাদন ছাড়াই পানিকে সম্পুর্ণ বিশুদ্ধ করা হয়। এই প্রক্রিয়ায় পানি বিশুদ্ধ করার পর পানিতে অপ্রয়োজনীয় খনিজ পদার্থ থাকে না, যা আমাদের কিডনির ওপর অনেক চাপ কমিয়ে দেয়। এই বিশুদ্ধকরণ প্রক্রিয়ায় বেশী ঘনত্বের দ্রবণ কম ঘনত্বের দিকে যায়। সাধারন পানিকে অসমোটিক প্রেসার প্রয়োগ করে রিভার্স অসমোসিস মেমবেন এর দিকে নিয়ে যায় এবং এই মেমবেনের ০.০০১ মাইক্রনের অর্ধভেদ্য পর্দার মধ্য দিয়ে কোন অস্বাস্থ্যকর এবং মানব দেহের জন্য ক্ষতিকর কোন পদার্থ যেতে পারে না। কেবল পানির মধ্যে দ্রবীভূত অক্সিজেন এবং মিনারেল সমৃদ্ধ শতভাগ পানি বের হয়। পৃথিবীর সবচেয়ে ক্ষুদ্র অনুজীবের ব্যাস হচ্ছে ০.০২ মাইক্রন যা Reverse Osmosis  মেমব্রেনের প্রতিটি ছিদ্রের ব্যাসের চাইতে ১৫ গুন বড়, যার ফলে RO প্রক্রিয়ায় কোন ধরনের ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস পানিতে থাকে না এং সব সময় পানি থাকে শতভাগ বিশুদ্ধ। অপরদিকে ক্ষতিকারক পদার্থ ময়লা, বালিকণা ড্রেনেজ লাইন দিয়ে বের হয়ে যায়।

📌চলুন জেনে নেওয়া যাক এর সুবিধা সমূহঃ

👉🏻 রিভার্স অসমোসিস প্রক্রিয়ায় উৎপন্ন পানিতে অপ্রয়োজনীয় খনিজ পদার্থ থাকে না, তাই এই পানি পান করলে কিডনির উপর চাপ অনেকাংশে কমে যায়।
👉🏻 এই প্রক্রিয়ায় কোন ধরনের তাপ প্রয়োগের প্রয়োজন হয় না এবং তাপ প্রয়োগ ব্যতীত পানি শতভাগ বিশুদ্ধ হয় যা বৈজ্ঞানিক ভাবে প্রমাণিত।
👉🏻 সর্বাধুনিক প্রযুক্তির এই পিউরিফিকেশন সিষ্টেম ৬টি স্তরে পরিশোধনের মাধ্যমে পানিকে করে সম্পূর্ণ নিরাপদ।
👉🏻 এই প্রক্রিয়ার সাহায্যে সকল প্রকার পানি বিশুদ্ধ করা সম্ভব এবং উৎপন্ন পানি মানব দেহের জন্য খুবই উপযোগী।
👉🏻 এই প্রক্রিয়ায় উৎপন্ন পানি দিয়ে ভাত রান্না করলে ভাত নরম হয় না। চা-কফি অত্যন্ত সু-স্বাদু হয় যা বহুল আলোচিত।
👉🏻 রিভার্স অসমোসিস ওয়াটার ফিল্টারে কোন প্রকার ব্যকটেরিয়া ও ভাইরাস এমনকি কোন প্রকার ক্ষতিকর কেমিক্যাল থাকতে পারেনা ।

👉🏻 রিভার্স অসমোসিস ফিল্টারের ছিদ্রের ব্যাস (পৌর সাইজ) ০.০০০১ মাইক্রোন যেখানে পৃথিবীর ক্ষুদ্রতম অণুজীবের ব্যাস ০.০০২ মাইক্রন সুতরাং এই প্রক্রিয়ায় কোনো ক্ষুদ্রতম অণুজীব যেমন ভাইরাস/ব্যাকটেরিয়া এবং কোনো প্রকার ক্ষতিকারক কেমিক্যাল পাস হতে পারে না ফলে পানি হয় ১০০% নিরাপদ।

👉🏻 বিশুদ্ধ পানি রিজার্ভের ব্যাবস্থা রয়েছ, যা কিনা বিদ্যুৎ চলে গেলেও ব্যবহার করতে পারবেন।

👉🏻 বারবার পানি ঢালার প্রয়োজন হয় না কারণ সরাসরি পানির লাইনের সাথে লাগানো ।
👉🏻 পানি ফুটানোর ঝামেলা নেই।
👉🏻 বারবার অন অফ করার প্রয়োজন হয় না কারন এটি সম্পূর্ন স্বয়ংক্রিয় ।
👉🏻 সামান্য বিদ্যুৎ প্রয়োজন হয়।
👉🏻কোন প্রকার ক্ষতিকর কেমিক্যাল থাকতে পারেনা ।

⚠️বিশেষ সর্তকতাঃ

পানির উৎস পরীক্ষা না করে RO(Reverse Osmosis) ওয়াটার পিউরিফায়ার ব্যবহার করা উচিত নয়। আপনার বাসায়/অফিসে/ফ্যাক্টরিতে খাওয়ার পানি বিশুদ্ধ করার জন্য কোন ফিল্টারটি ব্যবহার করবেন তা আপনার পানির উৎস এর নির্ভর করে। অন্যথায় ফিল্টারকৃত পানি মিনারেলশূন্য হয়ে যেতে পারে যা ব্যাটারির পানি হিসেবে ব্যবহার করা হয়। আমাদের কাছে বিনামূল্যে পানি পরীক্ষা করে আপনার জন্য সঠিক ফিল্টারটি করুন।

কোন টেকনোলজির ওয়াটার পিউরিফায়ার আপনি আপনার বাসায় ব্যবহার করবেন?

যদি আপনার লাইনের / ব্যবহারের পানির টিডিএস, হার্ডনেস এর পরিমান ৩০০মিলি
গ্রাম/ লিটার এর উপরে হয়অথবা পানিতে লবনের মাত্রা বেশি বা রাসায়নিক পদার্থ থাকার সম্ভাবনা থাকে তাহলে ঐ স্থানে বা ঐ লাইনের পানি বিশুদ্ধ করার জন্য রিভার্স অসমোসিস টেকনোলজির ফিল্টার ব্যবহার করতে হবে। এই প্রক্রিয়ায় পানি বিশুদ্ধ করার পর পানিতে অপ্রয়োজনীয় খনিজ পদার্থ থাকে না , ঐ ক্ষেত্রে আপনি কত স্থরের ওয়াটার ফিল্টার ব্যবহার করছেন তা মূখ্য বিষয় না। আপনার ব্যবহৃত ফিল্টার রিভার্স অসমোসিস কিনা সেটা নিশ্চিত করা জরুরি। কোনো পানির উৎস বা লাইনের পানির টিডিএস, হার্ডনেস এর পরিমান যদি

৫০-৩০০ এর মধ্যে হয় এবং পানিতে যদি আর্সেনিক বা অন্যান্য রাসায়নিক ভারী খনিজ পদার্থের পরিমান সহনীয় থাকে তাহলে ঐ পানির লাইনে ইউভি বা আল্ট্রাভায়োলেট টেকনোলজির পিউরিফায়ার লাগানো যাবে। ইউভি ফিল্টার পানিতে দ্রবীভুত কোনো রাসায়নিক ক্ষতিকর খনিজ পদার্থ(আর্সেনিক, লেড, সিসা , ক্লোরিন, সোডিয়াম ক্লোরাইড ইত্যাদি ) দূর করতে পারে না শুধু মাত্র পানিতে থাকা ভাইরাস ব্যাকটেরিইয়া কিল করতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *